শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৩:৩১ পূর্বাহ্ন

রণ্দীপা সরকার এর দুটি কবিতা

রণ্দীপা সরকার এর দুটি কবিতা

রণ্দীপা সরকার এর দুটি কবিতা

১. কলম
আমায় একটা কলম দিও,
যে কলমে লাল দাগে বাতিল করে,
নীল দিয়ে সঠিক বলে
সেই কলম আমার চাই না।
আমায় একটা কলম দিও,
যে কলম থাকে আঁশ না ওঠা কোটের বুকপকেটে,
যে কলমকে বাঁচানোর চেষ্টা চলে,
কখনো বা বড্ড অবহেলিত,
জোর করে লিখছে লিখুক
সেই কলম আমার চাই না।
যেই কলম, বহুদিন ধরে ঘরের শোভা বাড়ায়
একটা মন কাড়া গল্প বানায়,
আবার, মাটির দাওয়ায় গড়াগড়ি খায়
সেই কলম আমার চাই না।
ঠাম্মার একটা কলম ছিল ঝরনা কলম
দেখলে যেন চোখে মুখে আনন্দ ঝরতো।
দাদারটা এক্কেবারে চিকন
আগলে রাখে সারাক্ষণ
ওটা নাকি ওর লাকি কলম‌।
সেই কলমও আমার চাই না।
আমায় একটা কলম দিও,
যে কলম যোগ-বিয়োগের হিসাব কষে ,
ভালো মন্দের বিচার করে,
মনগড়া কিছু কথা বলে,
সত্য খোঁচাতে ভয় পায়
সেই কলম আমার চাই না।
আমায় একটা কলম দিও,
যে কলম, বেহিসেবি ভালোবাসে,
লাগামছাড়া আদর করে,
যে কলম, প্রেম বিলোয়, গল্প বলে
জমাটি আড্ডায়, একলা দুপুরে।
যে কলম, জাতপাতের দাগ কাটে না,
ধনী গরিবের ভাত চেনায় না,
কীসের বর্ণ, কীসের লিঙ্গ
ওটা একটা চিহ্নমাত্র।
সেই অলোভী প্রেম মাখানো।
একটা নজর দিও।

২. প্রশ্নোত্তর
অশ্রু, তুমি কেন ঝরো?
তোমার কষ্টগুলো সইতে পারি না যে।
লজ্জা, লজ্জা তুমি কেন আসো?
তোমায় আরো সম্ভ্রম করবো বলে।
অভিমান, তোমার কাঁদিয়ে কী সুখ?
তুমি যে আমায় গলায় পরে নাও,
আলতো ছোঁয়ায় হারিয়ে যাও।
দুঃখ, তুমি কেন ছেড়ে যাও না সহজে?
আমি আছি বলেই তো, তুমি কঠিন হয়ে যাও।
সুর, সুর তুমি কেন বয়ে চলো?
তোমার দুঃখ সাত সাগরে ভাসিয়ে দেব যে।
হাসি, তুমি যে বড় মিষ্টি
হুমম , তাই বুঝি,তোমার মন ভোলাব সাতবাজি।
বুদ্ধি, তুমি কেন খেলো?
তোমার মনের খেলাঘরে আমি যে দলছুট হয়ে রই।
অহম, তোমার কীসের এত তেজ?
তোমায় জ্বালাব বলে।
যেখানে যত সরলতা আছে সব আনো আমায় নেভাতে।
মন, তুমি কেন ধরা দাও না সহজে?
আমার থেকে পালাও যে নিজের গরজে।
আমি আছি তাই ভাবনা আছে,
আমি আছি তাই ভালোবাসার সুতো ছেড়ে না যে।
প্রশ্ন, তোমার কঠিন বাণে আমায় ক্ষতবিক্ষত কর কেন?
তোমার সহজ উত্তরে আমায় হারিয়ে দাও যে।

শেয়ার করুন ..

Comments are closed.




© All rights reserved © পাতা প্রকাশ
Developed by : IT incharge