মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:৪৬ পূর্বাহ্ন

মারুফ হোসেন মাহবুব এর একগুচ্ছ কবিতা

মারুফ হোসেন মাহবুব এর একগুচ্ছ কবিতা

মারুফ হোসেন মাহবুব এর একগুচ্ছ কবিতা

১. প্রার্থনা
পৃথিবী আবার মুখোর হোক মানুষের আনন্দ আবাহনে,
মানুষেরা জয়ী হোক মৃত্যুকে হারিয়ে দিয়ে।
এশিয়া-ইউরোপ-আমেরিকায়-আফ্রিকায়-অস্ট্রেলিয়ায়
মানুষের উদ্বোধনে, মানুষের উদযাপনে
বাঁশী ও সেতার বাজাক নির্মল হাওয়া,
মানুষের জয়গানে মুখোর হোক পাখীর কূজন- বনেবনে,
নদীর তীরেতীরে জীবন জাগুক গানেগানে- চাষে ও আবাসে।
সাগরের ঢেউ আনুক সৈকতে সৈকতে জীবনের নব আয়োজন,
জীবনের জয়গান অনুরণিত-উদ্ভাসিত হোক প্রাণেপ্রাণে,
আকাশ, বাতাস, নদী-সাগর-প্রান্তর মুখোর হোক-
জীবনের উৎসবে আবার।

মৃত্যু হেরে যাক, জীবাণু নিশ্চিহ্ন হোক,
পৃথিবী হোক প্রাণের উদযাপনের তপোবন।

২. সাপ নিজের লেজ নিজেই খেয়ে খেয়ে ক্রমঃ অগ্রসরমান
মানুষেরা সব বিচ্ছিন্ন, একা- নিমগ্নতায়-
কাছাকাছি এলে সংক্রমণের ভয়াবহতার ভয়ে,
পারস্পরিক অবিশ্বাস ও আক্রমণের ভয়ে-
পারস্পরিক ঈর্ষার আগুন থেকে বাঁচতে-
মানুষেরা একা ভয়াবহ রকমের একা- অসহায়।
অথচ তার অহংকার হিমালয়-কিলিমাঞ্জারোর উচ্চতা ছাড়ায়ে
আকাশ বিষাক্ত করছে- রক্তাক্ত করছে।
বিষদাঁতাল পশুরা সব দলবদ্ধ, যুথবদ্ধ, গুহাবদ্ধ-
অন্ধকার থেকে তাদের জ্বলজ্বলে চোখ-নখর
কেবল অন্ধকার নামার অপেক্ষা করছে-
তাদের বিষ-নিশ্বাস পৃথিবীকে ভরিয়ে তুলছে বিষ-বীজাণূতে।

৩. হুঁশিয়ারি
ক.
‘কিন্তু আর আমার ওপর গুলি চালাবার চেষ্টা করো না,
ভালো হবে না….
….আর যদি একটা গুলি চলে, আর যদি আমার লোকের ওপর হত্যা করা হয়-‘
হায়, আজও (স্বাধীন দেশে) বাঁশখালিতে গুলিতে মরে,
কাজ হারিয়ে ক্ষুব্ধ শ্রমিক ভাই-
এরা জাতির পিতার আদেশ নিষেধ পুতুলের মত ঠোঁটে আওড়ায়
-হৃদয়ে তো নেয় নাই।
আহা, শ্রমিক ভাইয়ের লাশ- তাদের মুষ্টিবদ্ধ হাত-
গুলিবিদ্ধ পড়ে আছে-
রাষ্টের কাছে চেয়েছিলো তারা কাজ ও ক্ষুধার ভাত
আহা, তাদের এই ছিলো অপরাধ।
খ.
লকডাউনে ক্ষুধায়, দারিদ্র্যতায় ক্লিষ্ট রিকশাওয়ালাকে পুলিশ যখন বেধড়ক পেটায়
বুর্জোয়াদের নির্বিঘ্ন প্রাইভেট কারগুলোর মিছিল থেকে আওয়াজ আসে- লং লিভ গণতন্ত্র।
গ.
রাষ্ট্র মানে যদি বুর্জোয়া গং,
তবে জনগণ মানে- আর্নেস্তো চে গুয়েভারা।

শেয়ার করুন ..

Comments are closed.




© All rights reserved © পাতা প্রকাশ
Developed by : IT incharge