মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০৪:২৫ অপরাহ্ন

মনোজ পাইন এর একগুচ্ছ কবিতা

মনোজ পাইন এর একগুচ্ছ কবিতা

মনোজ পাইন এর একগুচ্ছ কবিতা

সোফিয়ার বন্ধু

হাত বাড়ালেই বন্ধু হয় না। সময়
বদলে দেয় তত্ত্বকথা, অনুভব!
সেদিন একটা হনুমানের দিকে হাত
বাড়াতেই দাঁত খিচিয়ে তেড়ে এল!
অযাচিত হাতের আহ্বানে সন্দিগ্ধ সবাই!.
বিশ্বাসী নির্ভার হাত কই?হাতে হাত শালগ্রাম
শীলা মন্ত্রপাঠের পরও অনেকেই ঘর ছাড়ে
রিক্ত শুন্য হাতগুলি সব উত্তাপহীন বলে!
ঊষ্ণ হাতের সান্নিধ্যের লোভে সামাজিক মাধ্যম
গুলিতে সবাই ভিড় জমায়!কেউ জেতে কেউ নিস্ব
হয়৷ছোট বেলায় চু কিত্ কিত্ খেলায় যার কাছে
পরিমানের চেয়েও বেশি হেরেছি সেই সোফিয়া
সেদিন বলে গেল বন্ধু বাছতে এবার চুজি হবে
সে! সোফিয়া আরো বলেছে- পরিচিত অনেকেই
হয়, সব পরিচিতই বন্ধু হয় না।

সাপ

আমি এ কদিনেই বুঝে গেছি আমার ভেতরে
এক মস্ত বড়ো সাপ বাস করছে বহুদিন!
সে আমার মোটেও পোশ্য নয়! মানে না
আমায়।ভাবুন একবার আমার ভেতরটা
আমারই অজানা।এমন হয় নাকি?
দাদু সেদিন বললেন -তুৃমি যদি রাজনৈতিক
মানুষ হও ;তোমার ভেতরকার খবর নাড়ির
হাড়ির খবর সব জেনে যাবে কিছু পতাকা
বাহক লোক।তাদের না আছে দেশ না দল!
পাকা গৃহিণী যেভাবে একটা ভাতটিপে বলে
দেন সেদ্ধ কিনা ;সেভাবে তারাও বুঝে নেয়
তুমি কতটা দলীয় হয়ে উঠতে পারবে।তারপর
তোমার মধ্যে যে সাপ আছে তাকে দলীয় বীন
বাজিয়ে জাগিয়ে তুলবে।হিন্দু মুসলমান অথবা
অন্য কোন ধর্মীয় জিরাফের পিঠে বসিয়ে পার
করবে একে একে সমস্ত স্মৃতি।স্মৃতিগুলি বিস্মৃত
হলে মানুষ আর সাপের মধ্যে কোন ফারাক থাকে
না।তুমিও একদিন নিজের কাছে নিজেই অজানা
অচেনা হয়ে উঠবে।তখন তোমার পাশ দিয়ে তোমার
প্রিয় সারস উড়ে এসে বসলেও তুমি আদরের বদলে
ছোবল দিতে চাইবে।মানুষ সাপ হলে সাপেরা
বিপন্ন হয় -এ আমার বহুদিনের অর্জিত বিদ্যা।

ধ্রুব পত্র

অনেক স্মৃতিতে ভরপুর হৃদয়, তবুও মেঘ
পরিপাটি বারান্দায়। আমি আন্দাজ মতো
বেঁচে আছি।আগত বিপর্যয়ের স্বপ্ন, ভীতি
আমাকে প্রতিদিন চেটেপুটে খায়। প্রন্তিক
জীবন এখন পুরোপুরি নগর জীবনে ছেয়ে
আছে। স্মৃতি তো এখন ফেলে আসা গ্রাম,
যার উৎপাদনে বার্ধক্য বসেছে।
জানো, অদ্ভুত নিয়মে আমি আবিষ্কার করেছি
যে প্রেমে আমি নিজেকে নিয়ত কাঙাল ভাবি;
সে জীবন আমার থেকে দূর, বহুদূর। জেনে
রাখো,যে স্বপ্ন, যে ভয়ে আমি ঘুমোতে পারিনি
সেখানেই আমার দুখিনি কুঁড়ে ঘর প্রতিদিন
আশার প্রদীপ জ্বেলে যায়!
মনে রাখো,ধ্রুব শব্দে আমার নিয়ত প্রীতি
ঘৃণা শব্দ আমার থেকে যথারীতি দূর।

মানুষের পথ

আদিম গুহা থেকে অত্যাশ্চর্য শহর
-এতোটা পথ একাই পেরোলে মানুষ!
বসতি গড়ে তুললো এক হাতে
কাদা মাটি জল জঙ্গলে ছড়িয়ে দিলো
ভালোবাসা!
একমাত্র ভালোবাসাই বশ করল মানুষকে।
মানুষই বললো ভালোবাসার জন্য,
ভালোবাসার মানুষের জন্য পৃথিবী।
অথচ একদল লোক ক্রমশ ঘৃণা ছড়াচ্ছে !
এই অপরিমেয় জীবন পেয়েও বুঝছে না যে
ভালো না বাসলে নিস্তার নেই!
কে তাদের বোঝাবে ;
ঘৃণায় পথ ও মত পরিত্যাগ করা যায়
কিন্তু ভালো না বাসলে কেউ সে পথ মাড়ায় না।

শেয়ার করুন ..

Comments are closed.




© All rights reserved © পাতা প্রকাশ
Developed by : IT incharge