শনিবার, ২২ Jun ২০২৪, ০৬:২০ পূর্বাহ্ন

আমরা কেনো এতো আধুনিক হচ্ছি!-জসিম মল্লিক

আমরা কেনো এতো আধুনিক হচ্ছি!-জসিম মল্লিক


অরিত্রি আমেরিকা চলে গেছে প্রায় ছয় মাস হয়েছে। এই ছয় মাসে দুইবার টরন্টো এসেছে। শেষবার এসেছে এপ্রিলে আমাদের সাথে ঈদ করতে। আবার আগামী মাসে ঈদে আসার পরিকল্পনা করছে। অরিত্রি টুয়েলভ গ্রেড থেকে চাকরি শুরু করেছে। ১৬ বছর বয়সে ড্রাইভিং লাইসেন্স নিয়েছে। অর্কও তাই। অর্ক যা করত অরিত্রিও তাই করতে চাইত। একটা অলিখিত প্রতিযোগিতা ছিল ভাইবোনের। অর্ক ইউনিভার্সিটি অব টরন্টোর সেন্ট জর্জ ক্যাম্পাসে গেছে, অরিত্রিকেও যেতে হবে। সেই থেকে কেউই কখনো একটা পেনিও চায়নি আমার কাছে। নিজেদের খরচ নিজেরাই চালিয়েছে। তারপরতো কতকিছুই বদলে গেছে। অর্ক বাড়ি কিনে চলে গেছে অন্য শহরে। অরিত্রিকে কানাডাই ছাড়তে হলো। মেয়েদের জীবন স্বামীর সাথে বাঁধা থাকে। এটাই দস্তুর। অরিত্রি এখনও কোনো চাকরিতে জয়েন করেনি তাই এই সুযোগে মক্কা, মদিনা, দুবাই, আবুধাবি, দোহা সহ গোটা মধ্যপ্রাচ্য ঘুরে গতকাল আমেরিকায় ফিরেছে।


এই প্রসঙ্গ কেনো উঠালাম সেটা বলি। আগামী মাসেই আবার ঈদ। বাংলাদেশে আমার অনেক বন্ধু বা আত্মীয়রা ঈদের ছুটিতে কোথায় বেড়াতে যাবে তার তোরজোর শুরু হয়েছে। বিদেশে যাবে, নাকি কক্সবাজার যাবে, নাকি কোনো রিসোর্টে যাবে সেই পরিকল্পনা চলছে। বাজেটে কুলোবে কিনা সে চিন্তাও আছে। যাদের সেই সামর্থ্য নাই তারা গ্রামের বাড়িতে যাবে বা ঢাকায়ই থাকবে। আমি যখন হলে থাকতাম প্রতি ঈদে বাড়িতেই যেতে চাইতাম। সংসার হওয়ার পরও প্রতি বছর ছোট্ট ছেলে মেয়ে নিয়ে বাড়িতে ঈদ করেছি। কখনও রিসোর্টে বা হোটেলেৱ দরজা বন্ধ করে ঈদের দিন ঘুমানোর চিন্তা করিনি। মা বাবা, আত্মীয় পরিজনের সাথে ঈদের আনন্দই আলাদা। এসব দেশেও উৎসবগুলোতে পরিবারের সাথে মিলিত হওয়ার একটা আকাংখা থাকে সবার। পশ্চিমারা পুনরায় পরিবারের সাথে একত্রে থাকার অদম্য চেষ্টা করছে আর আমরা বিচ্ছিন্ন হওয়ার চেষ্টা করছি।


এসব দেশ আধুনিকতার শেষ সীমায় পৌঁছে আবার ফিরতে চাইছে মূলে। সেচুরেটেডে পয়েন্টে চলে গিয়ে রিটার্ন ট্রেন্ড চলছে। আর আমরা এখন মাত্র আধুনিক হচ্ছি। সংসার ভেঙ্গে দিচ্ছি কথায় কথায়, লীভ টুগেদার শুরু করেছি, একই সাথে একাধিক প্রেম করছে তরুনরা। এসব দেশে এরকম অনৈতিক চর্চা নাই। সম্পর্ক ভেঙ্গে গেলেই কেবল আবার সম্পর্কে জড়ায়। বিবাহিত বা যারা সম্পর্কে আছে তাদের সাথে কেউ সম্পর্ক করবে না সচারচাৱ। আমাদের তরুনরা এখন ক্যাফেতে বা ক্যাম্পাসে মধ্যরাত পর্যন্ত আড্ডা দেয়, স্মোক করে, প্রকাশ্যে চুমু খায় আর পশ্চিমা দেশে ধুমপানের বিরুদ্ধে একধরনের প্রচারনা আছে। ১৮ বছর বয়সের নিচে বা পাবলিক প্লেসের ৯ মিটারের মধ্যে ধুমপান করা যায় না, সিগারেট প্রকাশ্যে বিক্রিও হয় না। বাংলাদেশে এখন ছেলে মেয়েদের ডেটিং করা বা একসাথে মদ্যপান করাকে পরিবারিকভাবে স্বীকৃতি দিতে দেখেছি। তবে সবাই নয়। এক্ষেত্রে এখন পশ্চিমারা পিছিয়ে যাচ্ছে, আমরা এগিয়ে যাচ্ছি! অরিত্রি কোরবানির ঈদ করতে টরন্টো আসবে এটা জানার পর আমার এসব মনে হলো।

শেয়ার করুন ..

Comments are closed.




© All rights reserved © পাতা প্রকাশ
Developed by : IT incharge