শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০২:৫৯ পূর্বাহ্ন

অন্ধকারে আলোর ঝলকানি আলহাজ রহিম উদ্দিন ভরসা-এস.এম শুভ

অন্ধকারে আলোর ঝলকানি আলহাজ রহিম উদ্দিন ভরসা-এস.এম শুভ

অন্ধকারে আলোর ঝলকানি আলহাজ রহিম উদ্দিন ভরসা
এস.এম শুভ

অন্ধকারে আলোর ঝলকানির” নাম ছিল আলহাজ রহিম উদ্দিন ভরসা সাবেক সাংসদ (রংপুর-০৪) আসন। তিনিই তাঁর প্রজন্মের শ্রেষ্ঠতম বহূমাএিক প্রতিভার অবিনাসী চেতনার মানসপটে-এক প্রকৃত সমকালিন, সর্বজনীন অনন্য দ্রষ্টা। তিনি একাধারে একজন সমাজকর্মী, মানবধিকার, গুণী রাজনৈতিক কর্মী,সফল ও সার্থক সংগঠক, সদালাপী, সাহিত্যপ্রেমী, ভালো বক্তা, সম্পাদক, সবুজ চেতনার স্বনামধন্য শিল্পপতি, আরো অনেক কিছু। ব্যক্তি জীবনে তাঁর প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি প্রত্যাশাকে ও ছাড়িয়ে ভালোবাসার সুদিগন্তকে প্রসারিত করেছে। নানা চড়াই-উতরাই, সংকট ও নেতিবাচক সমালোচনাকে ভালোবাসার সাগরে নিমজ্জিত করে সবকিছুকে ইতিবাচক দৃশ্যমান আলোক বর্তিকায় পর্যবসিত করে এক মহাকাল রচনা করতে প্রয়াসি হয়েছিলেন। দলমত, প্রশাসনিক, ব্যবসায়িক,রাজনৈতিক প্রতিক্ষেত্রে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন বৃহত্তর রংপুরের সদ্য প্রয়াত এই প্রাণ পুরুষ।সত্যিকার অর্থে আগাগোড়া তিনি ছিলেন সাধারণ মানুষের মনের মানুষ। তিনি সারাজীবন রংপুরের ভাষাগত দিক থেকে আঞ্চলিকতা বজায় রেখে গেছেন। সাধারণ মানুষের সাথে মিশে গিয়ে” মুই/তুই করে সাবলীলভাবে কথা বলতেন। আপাদ মস্তক সম্ভাবনায় ভরপুর ছিল বহুগুণের অধিকারী এই মানুষটি। একসময়ে অর্থনৈতিকভাবে যুবুথুবো অবস্থায় পড়া রংপুরের কান্ডারি হয়ে অবর্তীণ হন তিনি। পশ্চাৎগামী রংপুরের বেকারত্ব ও অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য স্বপ্নের বীজ বপন করেছিলেন একেলা নিভৃত যতনে। যে স্বপ্নের বীজ তিনি একদিন অঙ্করুদগম করেছিলেন তা আজ বৃহৎ বটবৃক্ষে পরিনত হয়েছে। নিজ হাতে গড়া তার সবকয়টি প্রতিষ্ঠান আজ দিকে দিকে আলো ছড়াচ্ছে। এসব প্রতিষ্ঠান যেমন বাংলাদেশ সরকারের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে ইতিবাচক অংশীদারিত্ব বজায় রেখেই চলেছে তেমনি বৃহত্তর রংপুরের বেকারত্ব দূরীকরণেও অসামান্য অবদান রাখছে।
রংপুর জেলায় অবস্থিত বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের তালিকা যদি বলি তাহলে- কারুপণ্য রংপুর লিমিটেড, স্টেশন রোড, রংপুর।
এরিস্টোক্র্যাট এগ্রো লিমিটেড, বালাবাড়ী, তারাগঞ্জ, রংপুর। দি এরিস্টোক্র্যাট নন ওভেন ইন্ডাষ্ট্রিজ লিঃ, বালাবাড়ী, তারাগঞ্জ, রংপুর।
রংপুর ফাউন্ড্রি লিমিটেড (আরএফএল), বিসিক শিল্পনগরী, রংপুর।ভরসা গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজ, স্টেশন রোড, রংপুর।
মোতাহার গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজ, ছোট মন্থনা, নবাবগঞ্জ, রংপুর।
সনিক-প্রাইম গ্রুপ, উত্তর মমিনপুর,রংপুর। আদ্-দ্বীন মাদার কেয়ার লিমিটেড, উত্তর খলেয়া, সদর, রংপুর। হামিদ ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড, খলেয়াগঞ্জিপুর, রংপুর সদর, রংপুর।
গ্রীণ ওয়েল এন্ড পোল্ট্রি ফিড ইন্ডাষ্ট্রিজ, উত্তম, হাজীরহাট, রংপুর।
রংপুর ডেইরি এন্ড ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেড, বলদীপুকুর, মিঠাপুকুর,রংপুর।আপেল সিরামিকস(প্রাঃ)লিমিটেড,সাহাপুর,বদরগঞ্জ, রংপুর।
তিস্তা এগ্রো ফেব্রিকস ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেড, নবনীদাস, গঙ্গাচড়া, রংপুর।ভাই ভাই পেপার এ্যান্ড বোর্ড মিলস লিমিটেড, বুড়ীরহাট রংপুর। ডায়মন্ড পার্টিক্যাল বোর্ড মিলস লিঃ, উত্তম, উপশহর, রংপুর।ডায়মন্ড পেপার এন্ড পাল্প মিলস, উত্তম, হাজীরহাট, রংপুর।
মহুবর রহমান পার্টিক্যালস মিলস্ (প্রাঃ) লিঃ সাহেবগঞ্জ, রংপুর সদর, রংপুর। মেডিকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিঃ, দর্শনা, আর,কে রোড, রংপুর। এ্যালকার্ড ল্যাবরেটরীজ লিঃ, রবার্টসনগঞ্জ, রংপুর। আরডিআরএস এন্টারপ্রাইজ (প্রাঃ) লিমিটেড, জেল রোড ধাপ, রংপুর।
টি ইসলাম পেপার বোর্ড মিলস লিমিটেড, অভিরাম, দক্ষিণ পানাপুকুর, উত্তম, রংপুর।
বিএএফপি প্রাইভেট লিমিটেড, ঘনিরামপুর, তারাগঞ্জ, রংপুর।
মোস্ট পপুলার এগ্রো ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেড, দোহালীপাড়া, তারাগঞ্জ, রংপুর
ওয়াতানবে এন্ড ইকবাল ইঞ্জিনিয়ারিং কোং লিঃ বিসিক ষ্টেট, কেল্লাবন্দ, রংপুর
শাদাদৎ হোসেন পোলট্রি এ্যান্ড হ্যাচারী লিঃ, তাজহাট, রংপুর।
আর,ভি, কয়েল ইন্ডাষ্ট্রি লিঃ আর,ভি শিল্প নগরী, তাজহাট, রংপুর।
ন্যাশনাল টোব্যাকো কোং লিঃ, বাহার কাছনা, রংপুর।
জেটিএ জুট মিলস্ লিঃ, আলমনগর, রংপুর।
রহিম টোব্যাকো কোম্পানী লিঃ খলেয়াগঞ্জিপুর, পাগলাপীর, রংপুর।
আর,ভি,এফ,এল, আর,কে রোড, রংপুর।
ভরসা ফ্লাওয়ার মিলস লিমিটেড, তাজহাট, রংপুর।
নিউ এজ টোব্যাকো কোম্পানী লিঃ, রবার্টসনগঞ্জ, রংপুর।
মোতাহার হোসেন চৌধুরী জুট মিলস লিমিটেড, পীরগাছা, রংপুর
নর্থবেঙ্গল জুট মিলস লিমিটেড, ঈদুলপুর, জায়গীরহাট, মিঠাপুকুর, রংপুর
ভাই ভাই জুট মিলস লিমিটেড, কোবারু বুড়ীরহাট, রংপুর সদর, রংপুর
মমো জুট মিলস লিমিটেড, বড়বিল মন্থনা, গঙ্গাচড়া, রংপুর।
রংপুর জুট মিলস লিমিটেড, হারাগাছ, রংপুর।
জে,কে জুট প্রসেসিং ওয়ার্কস, চাউল আমোদ রোড, রংপুর।
কুড়িগ্রাম জুট প্রসেসিং ওয়ার্কস, চাউল আমোদ রোড, রংপুর।
কাজী ফার্মস গ্রুপ, সিও বাজার কেল্লাবন্দ, রংপুর
আবুল টোব্যাকো কোং লিঃ, উত্তম, উপশহর, রংপুর।
হাসেম টোব্যাকো কোং, উত্তম, উপশহর, রংপুর।
আকিজ টোব্যাকো কোম্পানী লিমিটেড, হাজীরহাট, মন্থনা, রংপুর।
শ্যামপুর সুগার মিলস্ লিঃ, শ্যামপুর, রংপুর।
ইকবাল সোপ ফ্যাক্টরী, চাউল আমোদ রোড, রংপুর।
ইরাক সোপ ফ্যাক্টরী, ষ্টেশন রোড, রংপুর।
শাহীন সোপ ফ্যাক্টরী, জুম্মাপাড়া, রংপুর। নিউ ইকবাল সোপ ফ্যাক্টরী, ফকির মোহাম্মদ রোড, জুম্মাপাড়া, রংপুর।
ইত্তেফাক ফ্লাওয়ারস মিলস্ লিঃ, জি,এল, রায় রোড, রংপুর।
ষ্টার ফ্লাওয়ারস মিলস্ লিঃ, আর, কে রোড, তাজহাট, রংপুর।
সিটি ফ্লাওয়ার মিলস্ লিঃ, আর, কে রোড, তাজহাট, রংপুর।
সোনালী ফ্লাওয়ারস মিলস্, রবার্টসনগঞ্জ,আলমনগর, রংপুর।
সিটি ব্রেড এ্যান্ড বিস্কুট ফ্যাক্টরী লিঃ, বাবুপাড়া, আলমনগর, রংপুর। মতি অটো রাইস মিলস, হাজীরপাড়া, হারাগাছ, কাউনিয়া,রংপুর।
সাবেয়া অটো রাইস মিলস লিঃ, ইকরচালী, তারাগঞ্জ, রংপুর।
আলম অটো রাইস মিলস লিঃ, মাহিগঞ্জ, রংপুর।
গত ছয় দশকে হাতেগনা যে কয়টি প্রতিষ্ঠান ভংঙ্গুর রংপুরের অর্থনীতিকে আঁকড়ে ধরে বাঁচিয়ে রেখেছে তার মধ্যে অনন্য অন্যতম হচ্ছে ভরসা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিস। অনেকক্ষেত্রে, এই প্রতিষ্ঠান রংপুরের গন্ডি পেরিয়ে জাতীয়ভাবে বেশ সমাদৃত হয়েছে। সদ্য প্রয়াত এই মানুষটি ভরসা গ্রুপ এবং বৃহত্তর রংপুরবাসীর জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি হিসেবে থাকবে। কর্ম ও গুনে ধৃষ্টতায় ও মননে চিরকাল রংপুরবাসীর মনের গহীনে প্রতিধ্বন্নিত হবে একটি নাম রহিম উদ্দিন ভরসা। একবিংশ শতাব্দীর এই সন্ধিক্ষণে এমন একজন মানুষকে হারিয়ে আমরা সত্যিই বিমোর্ষিত। রহিম উদ্দিন ভরসার সূত্র ধরেই তাঁর অনুসারী ও উত্তরসূরীরা ও এগিয়ে চলছে আপন বেগে একান্ত ধৃষ্টতা ও প্রঙ্গা নিয়ে সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ভাবে দুরন্তগতিতে। রংপুরবাসী ও ভরসা গ্রুপের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারীদেরও মনের একটিই দাবি-প্রাতিষ্ঠানিক অগ্রগামী যে ধারা বর্তমান রয়েছে সে ধারা যেন আরো বেগমান হয় সেটিই সময়ের বিবর্তন ও পরিবর্তনে দেখার- মধ্য দিয়ে প্রয়াত রহিম উদ্দিন ভরসার অর্ন্তনিহিত স্বপ্নকে বাঁচিয়ে রাখবে এবং তা বাস্তবে প্রতিফলিত হয়ে ভাস্বর হয়ে থাকবে- অনন্তকাল।
তিনি দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন।১৯৩৪ সালে জন্মগ্রহণ করে গত বুধবার (১১ মার্চ) দুপুর ১টা ২০ মিনিটে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি রংপুর জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এবং দৈনিক যুগের আলো পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন।রহিম উদ্দিন ভরসার মৃত্যুতে নানা পেশাজীবি মানুষ রংপুরজুড়ে শোকে বিহ্বলিত। উল্লেখ্য, রহিম উদ্দিন ভরসা সাহেব জিয়াউর রহমানের শাসনামলে বিএনপিতে যোগ দিয়ে বিলুপ্ত রংপুর-১০ (বর্তমান রংপুর-৪) আসন থেকে ১৯৭৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি রংপুর জেলা বিএনপির সভাপতি হিসেবে দীর্ঘদিন অত্যন্ত সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও পরবর্তীতে ব্যবসায়িকভাবে একজন দক্ষ সমাজ সেবক হিসেবে গণমানুষের কাছে
বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেন। এই তো সেদিন রংপুরের উদীয়মান শিল্পপতি তানবীর হোসেন আশরাফী ও রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ উপ-কমিশনার জনাব মহিদুল ইসলামসহ এক বিশেষ আলাপচারিতায় প্রয়াত রহিম উদ্দিন ভরসা সাহেবকে নিয়ে কথা হচ্ছিল। প্রসঙ্গক্রমে তানবীর আশরাফী ও উপকমিশনার স্যার বলছিলেন রহিম উদ্দিন ভরসা সাহেবের জনকল্যাণমুখী সৃষ্টি ও অর্জন নিয়ে একটি লাইফ ডকুমেন্টরী বের করা আবশ্যক। এভাবে নানা মানুষের কাছে তিনি একজন শক্ত খুঁটির ন্যায় আবর্ত ছিলেন। আমরা একটি শক্ত খুঁটি হারালাম চিরতরের জন্য। যেখানেই থাকুক মহান সৃষ্টিকর্তা যেন ভালো রাখেন এবং বেহেস্ত নসীব করেন রংপুরের এই সদ্য প্রয়াত উজ্জ্বল নক্ষত্রকে। কবি রুবিনা মজুমদারের কবিতার সূত্র ধরেই বলতে হয়-“সময়ের কাছে তবুও মানুষ হয়ে পড়ে কেন এতো অসহায়?
জীবনটা এতো ক্ষণিকের কেনো কেউ কি বলতে পারো হায়? তবুও কারো কাছে এর কোনো উত্তর নেই যেনো।
এই পৃথিবীর ক্ষণিকের মায়াডোরে, আলো আর আঁধারের মাঝে-
মৃত্যু যখন কাছে এসে বলে
পৃথিবীর সব মায়ার বাঁধন ছিন্ন করে
আমার কাছে আয় চলে আয়।
মানুষের জীবনটা তো আশা- নিরাশার দোলায় দোলে কতো রঙ্গিন স্বপ্ন বুনে জীবনের তরে সেই স্বপ্নগুলো সময়ের ব্যবধানে নির্মল মৃত্যুর আগমনে।
কোথায় যেন হারালো?
সেই হারানো স্বপ্নগুলো থাকে
বেদনার স্মৃতি দিয়ে মোড়ানো।”

শেয়ার করুন ..

Comments are closed.




© All rights reserved © পাতা প্রকাশ
Developed by : IT incharge